ধনিয়া গুঁড়া I Coriander Powder I 500 gm

৳ 300.0

👉আপনার ধনিয়া গুঁড়া কি হাইড্রোজ মুক্ত? ⁉️

আস্ত মসলার মধ্যে হলুদের পর সবচেয়ে বেশি কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয় ধনিয়ায়। ধনিয়ায় হাইড্রোজ ব্যবহার করা হয় অবাঞ্ছিত কালচে ভাব দূর করতে এবং ধনিয়াকে সতেজ রাখার জন্য। হাইড্রোজ ধনিয়াকে দীর্ঘদিন স্টোরেজ করতেও সহায়তা করে।হাইড্রোজ একটি ক্ষারীয় পদার্থ, যা পেটে গিয়ে পড়ে রক্তের সঙ্গে মিশে শ্বেত কণিকা ও হিমোগ্লোবিনের কার্যকারিতা নষ্ট করে দেয়।

ক্ষতিকর হাইড্রোজ যখন আস্ত ধনিয়ায় ব্যবহার করা হয় তখন ধনিয়ার উপরের স্তর ভেদ করে ধনিয়ার ভিতর ঢুকে পড়ে।

তাই বাজার থেকে আস্ত ধনিয়া কিনে ভালো করে ধোয়ার পরও কোন অবস্থাতেই ধনিয়াকে হাইড্রোজ মুক্ত করা সম্ভব নয়। এই অবস্থায় ধনিয়াকে মিলিং করার সাথে সাথে ক্ষতিকর হাইড্রোজ ধনিয়ার গুঁড়ার সাথে মিক্স হয়ে মসলা হিসেবে আমাদের শরীরে সঞ্চারিত হচ্ছে।

তাই, নিজস্ব তত্ত্বাবধানে প্রান্তিক কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি হাইড্রোজ মুক্ত আস্ত ধনিয়া ক্রয় করে ভালো করে ধুয়ে রোদে শুকিয়ে তারপর মিলিং করে শতভাগ ভেজাল মুক্ত ধনিয়ার গুঁড়া ভোক্তাদের দোরগোড়ায় পৌঁছানোর কাজটি করে।

রান্নায় ধনিয়া পরিচিত নাম।

খাবারের স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি শরীরের নানান উপকারে আসে এই মসলা।
পুষ্টিবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে ধনিয়া বীজের উপকারিতা সম্পর্কে এখানে জানানো হল।

হজমে সহায়তা: হজমে সমস্যা যেমন- পেট ফোলা, গ্যাস্ট্রিক, ডায়রিয়া, বমি বমিভাব ইত্যাদি দূর করতে ধনিয়া সাহায্য করে। এতে আছে খাদ্য আঁশ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এরা হজম সহায়ক হরমোন উৎপন্ন করে এবং যকৃতের কার্যকারিতা বাড়ায়।

কোলেস্টেরল কমায়: ধনিয়া খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় এবং ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়ায়। এই মসলা দস্তা, জিংক এবং অন্যান্য খনিজ সমৃদ্ধ যা ‘আরবিসি’ বা লোহিত রক্ত কণিকা বাড়ায় এবং হৃদপিণ্ড ভালো রাখে। ধনিয়া বিপাকেও সাহায্য করে।

ডায়াবেটিস উপশম: এই ক্ষুদ্র বীজ ওজন কমানো এবং অনাকাঙ্ক্ষিত চর্বি কমায়। এটা অ্যান্টিঅক্সডেন্টে এবং প্রয়োজনীয় ভিটামিনের ভালো উৎস; যা রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। রক্তের গ্লুকোজের মাত্রা ঠিক রাখতে সকালে ধনিয়া দিয়ে তৈরি পানীয় পান করুন। এটা ওজন কমাতেও সহায়তা করে।

ত্বক ও চুল সুস্থ রাখে: ধনিয়া বীজে আছে ভিটামিন কে, সি, বি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। আরও রয়েছে বিভিন্ন খনিজ উপাদান। এগুলো ত্বক ও চুলের জন্য উপকারী।

প্রতিদিনের খাবারে ধনিয়া যোগ করে ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনা যায়। কারণ এটা ত্বকে বলিরেখা পড়তে ধীর করে এবং অ্যালার্জি ও লালচেভাব থেকে রক্ষা করে। এটা চুল বৃদ্ধির পাশাপাশি অকাল পক্কতা ধীর করে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য : পণ্যের মান নিয়ে কোন অভিযোগ থাকলে পণ্য পরিবর্তন অথবা মূল্য ফেরত যোগ্য।আপনার যে কোন পরামর্শ বা উপদেশ সাদরে গ্রহন করা হবে। যা নিরাপদ খাদ্য আন্দোলনে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

👉 ধনিয়া গুঁড়ার মুল্য : 

🔴 ১ কেজি ধনিয়া গুঁড়ার মুল্য ৫০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম ধনিয়া গুঁড়ার মুল্য  ৩০০ টাকা। 

🔴 ২৫০ ধনিয়া গুঁড়ার মুল্য ১৫০ টাকা।

👉 নুডলস মসলার মুল্য :

🔴 ১ কেজি নুডলস মসলার মুল্য ১,৬০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম নুডলস মসলার মুল্য ৮৫০ টাকা।

🔴 ২৫০ গ্রাম নুডলস মসলার মুল্য ৪৫০ টাকা।

👉 বোঁটাবিহীন হাটহাজারীর মিষ্টি মরিচের গুড়ার মুল্য : 

🔴 ১ কেজি হাটহাজারীর মিষ্টি মরিচের গুড়ার মুল্য ৬০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম হাটহাজারীর মিষ্টি মরিচের গুড়ার মুল্য  ৩৫০ টাকা ।

🔴 ২৫০ গ্রাম ঝালহাটহাজারীর মিষ্টি মরিচের গুড়ার মুল্য ২০০ টাকা ।

👉 বোঁটাবিহীন ঝাল মরিচের গুড়ার মুল্য :

🔴 ১ কেজি ঝাল মরিচের গুড়ার মুল্য ৬০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম ঝাল মরিচের গুড়ার মুল্য  ৩৫০ টাকা ।

🔴 ২৫০ গ্রাম ঝাল মরিচের গুড়ার মুল্য ২০০ টাকা ।

👉 ইরানী জিরার গুঁড়ার মুল্য :

🔴 ১ কেজি ইরানী জিরার গুঁড়ার মুল্য ৯৫০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম ইরানী জিরার গুঁড়ার মুল্য ৫০০ টাকা ।

🔴 ২৫০ গ্রাম ইরানী জিরার গুঁড়ার মুল্য ৩০০ টাকা ।

👉 খান্দানি মাংসের মসলা গুঁড়ার মুল্য :

🔴 ১ কেজি খান্দানি মাংসের মসলা গুঁড়ার ১,২০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রামখান্দানি মাংসের মসলা গুঁড়ার ৭০০ টাকা।

🔴 ২৫০ খান্দানি মাংসের মসলা গুঁড়ার ৩৫০ টাকা।

👉 মাছের মসলার মুল্য :

🔴 ১ কেজি মাছের মসলার মুল্য ১,২০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম মাছের মসলার মুল্য ৬৫০ টাকা।

👉 নবাবি হালিম মিক্স ও মসলার মুল্য :

🔴 ১ কেজি নবাবি হালিম মিক্স ও মসলার মুল্য ৬০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম নবাবি হালিম মিক্স ও মসলার মুল্য ৩০০ টাকা।

🔴 ২৫০ গ্রাম মাছের মসলার মুল্য ৩৫০ টাকা।

👉 পাহাড়ি জুম চাষের হলুদ গুঁড়ার মুল্য :

🔴 ১ কেজি পাহাড়ি জুম চাষের হলুদ গুঁড়ার মুল্য ৫০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম পাহাড়ি জুম চাষের হলুদ গুঁড়ার মুল্য ৩০০ টাকা।

🔴 ২৫০ গ্রাম পাহাড়ি জুম চাষের হলুদ গুঁড়ার মুল্য ১৫০ টাকা।

অর্ডার কনফার্ম করার জন্য কল  করুন ::

☎ মোবাইল / হোয়াটস এপপ্স / ইমো # 01707001971
—————————————————————————————

👉ঢাকা সিটিতে পণ্য হাতে পেয়ে টাকা পরিশোধ করবেন।
👉ক্যাশ অন ডেলিভারী Cash on Delivery (COD).

🔴অর্ডার করার জন্য, আমাদের মোবাইলের ইনবক্সে মেসেজ সেন্ড করুনঃ

১.১  নাম #

১.২.ঠিকানা (বিস্তারিত)  #   বাড়ী নম্বর   #  কত তলা/ফ্লাট নম্বর  # , রোড নম্বর   # ,থানার নাম #

( লোকেশনের কাছাকাছি পরিচিত স্থান/বাজার/স্কুলের নাম)

২.১ আপনার মোবাইল নম্বর (সম্ভভ হলে )

২.২ ২য় কন্টাক্ট পারসনের নাম ও মোবাইল নম্বর

৩. প্রোডাক্ট এর নাম ,কোড অথবা ছবি ও পরিমান

[ মেসেজ পাঠানোর পর আমরা আপনার সাথে যোগাযোগ করে অর্ডার কনফার্ম করবো ]
=========================================

🟥ঢাকা সিটিতে ডেলিভারি চার্জ নুন্যতম ৮০ টাকা ( অতিরিক্ত ওজনে প্রতি কেজির জন্য ১৫ টাকা হারে  ডেলিভারি চার্জ বৃদ্ধি পাবে)।

🟥ঢাকা সিটির বাইরে কুরিয়ার থেকে ডেলিভারি চার্জ ১২০ টাকা ( অতিরিক্ত ওজনে ডেলিভারি চার্জ বৃদ্ধি পাবে )।

🟥ঢাকা সিটির বাইরে জেলা বা উপজেলায় হোম ডেলিভারি চার্জ ১৫০ টাকা অতিরিক্ত ওজনে প্রতি কেজির জন্য ৩০ টাকা হারে ডেলিভারি চার্জ বৃদ্ধি পাবে)।

🔴ঢাকা সিটির বাইরে থেকে অর্ডারটি নিশ্চিত করতে পণ্যের সম্পুর্ন মুল্য 🔴 এডভান্স প্রযোজ্য বিকাশ, নগদ ও রকেট অথবা ব্যাংকের মাধ্যমে। ( COD তে ক্যাশ কালেকশনে ১% চার্জ দিতে হবে । বিকাশ, নগদ ও রকেট চার্জ প্রযোজ্য)

🛑Bkash  : 0170 700 1971 ( Personal )

🛑Nagad : 0170 700 1971 ( Personal )

🛑Rocket : 0170 700 19718 ( Personal )

🛑DUTCH BANGLA BANK

👉AC NAME # MD ABDUR ROUF, SAVINGS AC # 2361 5168 939

🛑মোবাইলে অর্ডার দিতে কল করুন ::☎ মোবাইল / হোয়াটস এপপ্স / ইমো  #  01707001971

[ সকাল ১০টা থেকে রাত ১০ টার মধ্যে, ফোনে না পেলে এস এম এস দিয়ে রাখুন 0170 700 1971 নম্বরে ]

Out of stock

Description

ধনিয়া বীজ যে রোগগুলো সারায়
একাধিক রোগ সারাতে দারুণ কাজে আসে ধনিয়া বীজ। এই মশলাটি ছাড়া বাংলাদেশসহ ভারতীয় উপমহদেশীয়দের রান্না যেন আত্মা ছাড়া শরীর। কী তাই না! ঝোল হোক, কী ঝাল; সব কিছুতেই ধনিয়া বীজের অবাধ বিতরণ। হবে নাই বা কেন বলুন।স্বাদে, গন্ধে যে এর জুড়ি মেলা ভার। এখানেই শেষ নয়, রান্নার স্বাদ বৃদ্ধি ছাড়াও শরীর ভালো রাখতেও ধনিয়া বীজ দারুণ কাজে আসে। ত্বকের সমস্যা থেকে পিরিয়ডের গোলযোগ, সব রকমের রোগ সারাতেই মোক্ষম দাওয়াই হিসাবে ব্যবহার করা যেতে পারে দেশীয় এই মশলাটিকে। তাই ধনিয়া পাতার পরিবর্তে ধনিয়া বীজে বেশি করে ব্যবহার করুন রান্নায়। দেখবেন নানাভাবে সুফল পাবেন।

তাহলে অপেক্ষা কিসের।
চলুন জেনে নেওয়া যাক ধনিয়া বীজের নানা উপকারিতা সম্পর্কে :

১. ত্বকের রোগ সারায়
একজিমা, চুলকানি, ফুসকুড়ি এবং প্রদাহ মতো সমস্যা কমাতে দারুণ কাজে আসে ধনিয়া বীজ। একমুঠো ধনিয়া বিজ নিয়ে তার পেস্ট বানিয়ে ফেলুন প্রথমে। তারপর সেই পেস্ট ক্ষত স্থানে লাগান। দেখবেন অল্প দিনেই ত্বকের রোগ দূরে পালাবে।
২. চুলের বৃদ্ধিতে কাজে লাগে
প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় এই মশলাটি রাখলে চুল পড়া তো কমবেই, সেই সঙ্গে চুল শক্তপোক্তও হবে।
৩. জ্বর-সর্দি-কশি কমায়
ধনিয়া বীজে রয়েছে ভিটামিন এ, বিটা ক্যারোটিন, ফলিক এসিড এবং ভিটামিন সি। এই উপাদানগুলির সবক’টিই অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা ঠাণ্ডা লাগা, সর্দি-কাশি এমনকী জ্বরের প্রকোপ কমাতেও সাহায্য করে।
৪. ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখে
রক্তে শর্করা এবং কোলেস্টেরলের মাত্রা স্বাভাবিক রাখতে ধনিয়া বীজ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
৫. হজমক্ষমতা বাড়ায়
হজমে সহায়ক পাচকরসের ক্ষরণে সাহায্য করে ধনিয়া বীজ। ফলে হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটে। তাই যারা বদহজমের সমস্যায় ভুগছেন তারা খাবারের সঙ্গে অথবা সরাসরি ধনিয়া বীজ খাওয়া শুরু করুন। ভালো ফল পাবেন।
৬. কনজাংটিভাইটিসের প্রকোপ কমায়
ধনিয়া বীজে প্রচুর মাত্রায় অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি প্রপার্টিজ রয়েছে। যে কারণে এই মশলাটি কনজাংটিভাইটিসের পাশাপাশি চোখের বেশ কিছু সমস্যা কমাতে ভালো কাজে আসে।
৭. পিরিয়ড সম্পর্কিত নানা সমস্যা কমায়
এই সময় অস্বাভাবিক রক্তক্ষরণ হয়? তাহলে আজ থেকেই খাদ্যতালিকায় যোগ করুন এই মশলাটিকে। কারণ ধনিয়া বীজ এই ধরনের সমস্যা কমায়, সেই সঙ্গে পিরিয়ডের যন্ত্রণা হ্রাসেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।
সূত্র : টাইমস অফ ইন্ডিয়া

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “ধনিয়া গুঁড়া I Coriander Powder I 500 gm”

Your email address will not be published. Required fields are marked *