পাহাড়ি জুম চাষের হলুদ গুঁড়া I Turmeric Powder of hill Jhum Cultivation I 500 gm

৳ 300.0

👉পাহাড়ি জুমের হলুদ গুঁড়া কেন ব্যবহার করবেন ⁉️
রাসায়নিক সার ও কোনো ধরনের কীটনাশকের ব্যবহার ছাড়া পাহাড়ে ধান চাষের সাথে সম্পূর্ণ জৈব উপায়ে হলুদ চাষ করাকে বুঝায় জুম চাষের হলুদ।
পাহাড়ের সব অঞ্চলে জুম পদ্ধতিতে হলুদ চাষ হয় না তার কারণ পাহাড়ের সমতল অঞ্চলে রাসায়নিক সার সহজলভ্য বলে বেশিরভাগ চাষীরা হলুদ চাষে রাসায়নিক সার ব্যবহার করে।
তাই রাঙ্গামাটি জেলা থেকে ২৫০ কিলোমিটার দূরে গভীর পাহাড়ে নিজস্ব কৃষক দিয়ে ধান চাষের সাথে জুম পদ্ধতিতে চাষ করে উন্নতমানের প্রাকৃতিক হলুদ। এই হলুদ সম্পূর্ণ সীসা ও আর্সেনিক মুক্ত এবং প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে চাষ হয় বলে গুণগত মান ভালো হওয়ায় সারাদেশে খুবই জনপ্রিয় এই পাহাড়ি হলুদ।
জুম চাষের সাথে  হলুদ চাষ হয় বলে হলুদের পুষ্টিগুণ ও স্বাদ সম্পূর্ণ অক্ষুন্ন থাকে এবং এর রং অত্যন্ত গাঢ় বলে অল্প ব্যবহারে রান্নায় আকর্ষণীয় ও উজ্জ্বল কালার আসে। এ হলুদের ঘ্রাণ অত্যন্ত তীব্র হওয়ায় রান্নায় চমৎকার সুঘ্রাণ তৈরি হয়। সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে চাষ হয় বলে গভীর পাহাড়ে চাষকৃত  মসলার হলুদের গুঁড়া খুবই স্বাস্থ্যকর যা গরুর দুধ ও চায়ের সাথে খাওয়া যায়।

হলুদের গুড়াঁ আমরা সবাই চিনি। আপনি কি জানেন, প্রাচীন ভারতীয় আয়ুর্বেদ ও চৈনিক চিকিৎসাপদ্ধতিতে হলুদের ব্যবহার হচ্ছে সহস্র বছর ধরে? দক্ষিণ এশিয়ার রান্নায় হলুদ বহুল সমাদৃত একটি উপাদান। স্বাস্থ্যকর ভেষজ হলুদকে কেউ কেউ ‘ঔষধি ভেষজ’ নামে আখ্যায়িত করেন।

হলুদের উপকারিতা

হলুদের মধ্যে একধরনের আরোগ্যশক্তি রয়েছে। হলুদের কিছু উপকারিতা তুলে ধরছি।

ওজন কমাতে সাহায্য করে

গবেষণা বলছে, খাবারে নিয়মিত হলুদ গ্রহণ করলে ওজন কমে! আমাদের স্থূলতার জন্য দায়ী টিস্যুগুলোর বৃদ্ধি রোধ করে। মেটাবলিজম বাড়ায়। ফলে চিনিজাত খাদ্য শরীরে চর্বি আকারে জমাট বাঁধতে পারে না। হলুদ রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়ায়। জীবাণু ও ব্যাকটেরিয়াজনিত সংক্রমণ সারিয়ে তোলে।

ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে

ত্বকের বলিরেখা, বয়সের ছাপ দূর করে। মুখের তেলতেলে ভাব নিয়ন্ত্রণ করে। ব্রণের হাত থেকে ত্বককে বাঁচায়। খুশকি দূর করতেও সাহায্য করে।

হজমের সমস্যা দূর করে

হলুদ পরিপাকতন্ত্রের কর্মক্ষমতা বাড়ায়। পাকস্থলীতে গ্যাস্ট্রিকজাতীয় উপাদানের আধিক্য শারীরিক অসুস্থতা আনে। তৈরি করে মানসিক অস্থিরতা। হলুদ এ ক্ষেত্রে মহৌষধ হিসেবে কাজ করে।

আর্থ্রাইটিসের ব্যথা হ্রাস করে

হলুদে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান থাকে। আর্থ্রাইটিসের কবল থেকে এই উপাদান রক্ষা করে। হাড়ের কোষকে সুরক্ষা দেয়। অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে নড়াচড়ার অসুবিধা দূর করে।

হৃদ্​যন্ত্রকে রক্ষা করে

হলুদ রক্তকোষ ও কোলেস্টরেলবাহী তন্তুকে ঠিক রাখে। রক্তনালিকে উন্মুক্ত করে ও রক্ত চলাচলের বাধা দূর করে। রক্তকণিকার অনাকাঙিক্ষত মৃত্যু রোধ করে।

ক্যানসার ঠেকাতে সাহায্য করে

হলুদের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান রক্তকণিকাকে নিরাপদ রাখে। ফলে স্তন ক্যানসার, পাকস্থলী, কোলন ও ত্বকের ক্যানসার তৈরি হতে পারে না।

মস্তিষ্কের ক্ষয়জনিত সমস্যা রোধ করে

হলুদে থাকা অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান পার্কিনসনস, আলঝেইমার, টিস্যুর স্থবিরতার মতো অসুস্থতা রোধে সক্ষম। এটি আমাদের মস্তিষ্কে তথ্য আদান-প্রদানের পরিমাণ বাড়ায়। হতাশার পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে।

যকৃৎ সুরক্ষিত রাখে

হলুদ যকৃতের নানান রোগের প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করে। লিভারের বহুবৃদ্ধি, হেপাটাইটিস, সিরোসিস, গলব্লাডারের মতো সমস্যা তৈরিতে বাধা দেয়।

শ্বাসক্রিয়াকে শক্তিশালী করে

গবেষণায় দেখা গেছে, রক্তের প্রবাহ বাড়িয়ে তুলতে সক্ষম হলুদের কারকিউমিন। অ্যালার্জি, হাঁপানি, ব্রংকাইটিস বা কাশি, ঠান্ডা ও কফের সমস্যায় আয়ুর্বেদ চিকিৎসকেরা হলুদ সেবনের পরামর্শ দিতেন।

নিয়মিত পিরিয়ড নিশ্চিত করে

অনিয়মিত মাসিক রোধ, হরমোনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ–বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখে হলুদের কারকিউমিন। এই উপাদান পিরিয়ডের আগে ব্যথা কমাতেও সাহায্য করে থাকে।

পুষ্টিবিদ শামছুন্নাহার নাহিদ

বিশেষ দ্রষ্টব্য : পণ্যের মান নিয়ে কোন অভিযোগ থাকলে পণ্য পরিবর্তন অথবা মূল্য ফেরত যোগ্য।আপনার যে কোন পরামর্শ বা উপদেশ সাদরে গ্রহন করা হবে। যা নিরাপদ খাদ্য আন্দোলনে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

👉 পাহাড়ি জুম চাষের হলুদ গুঁড়ার মুল্য : 

🔴 ১ কেজি পাহাড়ি জুম চাষের হলুদ গুঁড়ার মুল্য ৫০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম পাহাড়ি জুম চাষের হলুদ গুঁড়ার মুল্য  ৩০০ টাকা। 

🔴 ২৫০ গ্রাম পাহাড়ি জুম চাষের হলুদ গুঁড়ার মুল্য ১৫০ টাকা।

👉 নুডলস মসলার মুল্য :

🔴 ১ কেজি নুডলস মসলার মুল্য ১,৬০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম নুডলস মসলার মুল্য ৮৫০ টাকা।

🔴 ২৫০ গ্রাম নুডলস মসলার মুল্য ৪৫০ টাকা।

👉 বোঁটাবিহীন হাটহাজারীর মিষ্টি মরিচের গুড়ার মুল্য : 

🔴 ১ কেজি হাটহাজারীর মিষ্টি মরিচের গুড়ার মুল্য ৬০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম হাটহাজারীর মিষ্টি মরিচের গুড়ার মুল্য  ৩৫০ টাকা ।

🔴 ২৫০ গ্রাম ঝালহাটহাজারীর মিষ্টি মরিচের গুড়ার মুল্য ২০০ টাকা ।

👉 বোঁটাবিহীন ঝাল মরিচের গুড়ার মুল্য :

🔴 ১ কেজি ঝাল মরিচের গুড়ার মুল্য ৬০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম ঝাল মরিচের গুড়ার মুল্য  ৩৫০ টাকা ।

🔴 ২৫০ গ্রাম ঝাল মরিচের গুড়ার মুল্য ২০০ টাকা ।

👉 ইরানী জিরার গুঁড়ার মুল্য :

🔴 ১ কেজি ইরানী জিরার গুঁড়ার মুল্য ৯৫০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম ইরানী জিরার গুঁড়ার মুল্য ৫০০ টাকা ।

🔴 ২৫০ গ্রাম ইরানী জিরার গুঁড়ার মুল্য ৩০০ টাকা ।

👉 খান্দানি মাংসের মসলা গুঁড়ার মুল্য :

🔴 ১ কেজি খান্দানি মাংসের মসলা গুঁড়ার ১,২০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রামখান্দানি মাংসের মসলা গুঁড়ার ৭০০ টাকা।

🔴 ২৫০ খান্দানি মাংসের মসলা গুঁড়ার ৩৫০ টাকা।

👉 মাছের মসলার মুল্য :

🔴 ১ কেজি মাছের মসলার মুল্য ১,২০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম মাছের মসলার মুল্য ৬৫০ টাকা।

👉 নবাবি হালিম মিক্স ও মসলার মুল্য :

🔴 ১ কেজি নবাবি হালিম মিক্স ও মসলার মুল্য ৬০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম নবাবি হালিম মিক্স ও মসলার মুল্য ৩০০ টাকা।

🔴 ২৫০ গ্রাম মাছের মসলার মুল্য ৩৫০ টাকা।

👉 ধনিয়া গুঁড়ার মুল্য :

🔴 ১ কেজি ধনিয়া গুঁড়ার মুল্য ৫০০ টাকা ।

🔴 ৫০০ গ্রাম ধনিয়া গুঁড়ার মুল্য ৩০০ টাকা।

🔴 ২৫০ ধনিয়া গুঁড়ার মুল্য ১৫০ টাকা।

অর্ডার কনফার্ম করার জন্য কল  করুন ::

☎ মোবাইল / হোয়াটস এপপ্স / ইমো # 01707001971
—————————————————————————————

👉ঢাকা সিটিতে পণ্য হাতে পেয়ে টাকা পরিশোধ করবেন।
👉ক্যাশ অন ডেলিভারী Cash on Delivery (COD).

🔴অর্ডার করার জন্য, আমাদের মোবাইলের ইনবক্সে মেসেজ সেন্ড করুনঃ

১.১  নাম #

১.২.ঠিকানা (বিস্তারিত)  #   বাড়ী নম্বর   #  কত তলা/ফ্লাট নম্বর  # , রোড নম্বর   # ,থানার নাম #

( লোকেশনের কাছাকাছি পরিচিত স্থান/বাজার/স্কুলের নাম)

২.১ আপনার মোবাইল নম্বর (সম্ভভ হলে )

২.২ ২য় কন্টাক্ট পারসনের নাম ও মোবাইল নম্বর

৩. প্রোডাক্ট এর নাম ,কোড অথবা ছবি ও পরিমান

[ মেসেজ পাঠানোর পর আমরা আপনার সাথে যোগাযোগ করে অর্ডার কনফার্ম করবো ]
=========================================

🟥ঢাকা সিটিতে ডেলিভারি চার্জ নুন্যতম ৮০ টাকা ( অতিরিক্ত ওজনে প্রতি কেজির জন্য ১৫ টাকা হারে  ডেলিভারি চার্জ বৃদ্ধি পাবে)।

🟥ঢাকা সিটির বাইরে কুরিয়ার থেকে ডেলিভারি চার্জ ১২০ টাকা ( অতিরিক্ত ওজনে ডেলিভারি চার্জ বৃদ্ধি পাবে )।

🟥ঢাকা সিটির বাইরে জেলা বা উপজেলায় হোম ডেলিভারি চার্জ ১৫০ টাকা অতিরিক্ত ওজনে প্রতি কেজির জন্য ৩০ টাকা হারে ডেলিভারি চার্জ বৃদ্ধি পাবে)।

🔴ঢাকা সিটির বাইরে থেকে অর্ডারটি নিশ্চিত করতে পণ্যের সম্পুর্ন মুল্য 🔴 এডভান্স প্রযোজ্য বিকাশ, নগদ ও রকেট অথবা ব্যাংকের মাধ্যমে। ( COD তে ক্যাশ কালেকশনে ১% চার্জ দিতে হবে । বিকাশ, নগদ ও রকেট চার্জ প্রযোজ্য)

🛑Bkash  : 0170 700 1971 ( Personal )

🛑Nagad : 0170 700 1971 ( Personal )

🛑Rocket : 0170 700 19718 ( Personal )

🛑DUTCH BANGLA BANK

👉AC NAME # MD ABDUR ROUF, SAVINGS AC # 2361 5168 939

🛑মোবাইলে অর্ডার দিতে কল করুন ::☎ মোবাইল / হোয়াটস এপপ্স / ইমো  #  01707001971

[ সকাল ১০টা থেকে রাত ১০ টার মধ্যে, ফোনে না পেলে এস এম এস দিয়ে রাখুন 0170 700 1971 নম্বরে ]

Out of stock

Description

হলুদের এত গুণাগুণের মূল নায়ক হল ‘কারকিউমিন’, একটি উদ্ভিজ্জ রাসায়নিক উপাদান, যার আছে শক্তিশালী প্রদাহনাশক ক্ষমতা। হাঁটুর ব্যথা সারাতে, কোলেস্টেরল সামলাতে, হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে এবং ‘ইরিটেবল বাউয়েল সিন্ড্রোম (আইবিএস)’য়ের অস্বস্তি কমাতে এই মসলা কার্যকর।

হলুদের গুড়াঁ আমরা সবাই চিনি। আপনি কি জানেন, প্রাচীন ভারতীয় আয়ুর্বেদ ও চৈনিক চিকিৎসাপদ্ধতিতে হলুদের ব্যবহার হচ্ছে সহস্র বছর ধরে? দক্ষিণ এশিয়ার রান্নায় হলুদ বহুল সমাদৃত একটি উপাদান। স্বাস্থ্যকর ভেষজ হলুদকে কেউ কেউ ‘ঔষধি ভেষজ’ নামে আখ্যায়িত করেন।

হলুদের উপকারিতা

হলুদের মধ্যে একধরনের আরোগ্যশক্তি রয়েছে। হলুদের কিছু উপকারিতা তুলে ধরছি।

ওজন কমাতে সাহায্য করে

গবেষণা বলছে, খাবারে নিয়মিত হলুদ গ্রহণ করলে ওজন কমে! আমাদের স্থূলতার জন্য দায়ী টিস্যুগুলোর বৃদ্ধি রোধ করে। মেটাবলিজম বাড়ায়। ফলে চিনিজাত খাদ্য শরীরে চর্বি আকারে জমাট বাঁধতে পারে না। হলুদ রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়ায়। জীবাণু ও ব্যাকটেরিয়াজনিত সংক্রমণ সারিয়ে তোলে।

ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে

ত্বকের বলিরেখা, বয়সের ছাপ দূর করে। মুখের তেলতেলে ভাব নিয়ন্ত্রণ করে। ব্রণের হাত থেকে ত্বককে বাঁচায়। খুশকি দূর করতেও সাহায্য করে।

হজমের সমস্যা দূর করে

হলুদ পরিপাকতন্ত্রের কর্মক্ষমতা বাড়ায়। পাকস্থলীতে গ্যাস্ট্রিকজাতীয় উপাদানের আধিক্য শারীরিক অসুস্থতা আনে। তৈরি করে মানসিক অস্থিরতা। হলুদ এ ক্ষেত্রে মহৌষধ হিসেবে কাজ করে।

আর্থ্রাইটিসের ব্যথা হ্রাস করে

হলুদে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান থাকে। আর্থ্রাইটিসের কবল থেকে এই উপাদান রক্ষা করে। হাড়ের কোষকে সুরক্ষা দেয়। অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে নড়াচড়ার অসুবিধা দূর করে।
হৃদ্​যন্ত্রকে রক্ষা করে

হলুদ রক্তকোষ ও কোলেস্টরেলবাহী তন্তুকে ঠিক রাখে। রক্তনালিকে উন্মুক্ত করে ও রক্ত চলাচলের বাধা দূর করে। রক্তকণিকার অনাকাঙিক্ষত মৃত্যু রোধ করে।

ক্যানসার ঠেকাতে সাহায্য করে

হলুদের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান রক্তকণিকাকে নিরাপদ রাখে। ফলে স্তন ক্যানসার, পাকস্থলী, কোলন ও ত্বকের ক্যানসার তৈরি হতে পারে না।

মস্তিষ্কের ক্ষয়জনিত সমস্যা রোধ করে

হলুদে থাকা অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান পার্কিনসনস, আলঝেইমার, টিস্যুর স্থবিরতার মতো অসুস্থতা রোধে সক্ষম। এটি আমাদের মস্তিষ্কে তথ্য আদান-প্রদানের পরিমাণ বাড়ায়। হতাশার পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে।

যকৃৎ সুরক্ষিত রাখে

হলুদ যকৃতের নানান রোগের প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করে। লিভারের বহুবৃদ্ধি, হেপাটাইটিস, সিরোসিস, গলব্লাডারের মতো সমস্যা তৈরিতে বাধা দেয়।

শ্বাসক্রিয়াকে শক্তিশালী করে

গবেষণায় দেখা গেছে, রক্তের প্রবাহ বাড়িয়ে তুলতে সক্ষম হলুদের কারকিউমিন। অ্যালার্জি, হাঁপানি, ব্রংকাইটিস বা কাশি, ঠান্ডা ও কফের সমস্যায় আয়ুর্বেদ চিকিৎসকেরা হলুদ সেবনের পরামর্শ দিতেন।

নিয়মিত পিরিয়ড নিশ্চিত করে

অনিয়মিত মাসিক রোধ, হরমোনের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ–বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখে হলুদের কারকিউমিন। এই উপাদান পিরিয়ডের আগে ব্যথা কমাতেও সাহায্য করে থাকে।

পুষ্টিবিদ শামছুন্নাহার নাহিদ

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “পাহাড়ি জুম চাষের হলুদ গুঁড়া I Turmeric Powder of hill Jhum Cultivation I 500 gm”

Your email address will not be published. Required fields are marked *