তিসির তেল I Flaxseed Oil I 100 ml

৳ 190.0

তিসি একপ্রকার গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ।  ইংরেজিতে যার বৈজ্ঞানিক নাম Linum Usitatissimum। মূলত শস্য বীজ হিসেবে তিসির চাষ করা হয় আমাদের দেশে। ফাল্গুন ও চৈত্র মাসে এই ফসল ঘরে তোলা হয়।

তিসি বীজ গাছের প্রতিটি অংশ আমাদের কাজে লাগে। যেমনঃ তিসির গাছের বাকল বা আঁশ থেকে আমরা লিনেন জাতীয় কাপড় তৈরি করি। তিসির ফুল দিয়ে নানা রকম ঔষুধি কাজে ব্যবহার করা হয়।   তিসির ফল মানে তিসির বীজ থেকে আমরা তিসির তেল পেয়ে থাকি। সুতরাং তিসির প্রতিটি অংশ আমাদের জন্য প্রয়োজনীয়।

তিসির তেল

তিসির তেল ১০০০ বছর আগে থেকে মানুষ ব্যবহার করে আসছে। বলা যায়, মানুষের আদিম সভ্যতার শুরু সময় থেকে তিসির তেলের ব্যবহার শুরু হয় এবং তা এখনও বিদ্যমান আছে।

মূলত ইউরোপের দেশ গুলোতে তিসির তেলের ব্যবহার অধিক ছিল।পরর্বতীতে তা এশিয়ার দেশ গুলোতে প্রসারিত হয়। বর্তমান সময়ে বিজ্ঞানের আধুনিকতার ছোঁয়ায়  সারা বিশ্বের মানুষের কাছে পৌছে যাচ্ছে খুব সহজেই।

তিসির তেলের পুষ্টি-গুণ

তিসির বীজ থেকে তিসির তেলের পুষ্টি একই নয়। যেমনঃ তিসির বীজ থেকে আমরা ফাইবার ও জিংক পেয়ে থাকি।

তিসির তেলের মূল পুষ্টি-গুণ হচ্ছে ওমেগা ফ্যাটি -৩ এসিড। যা আমরা সাধারণত মাছের তেল থেকে পেয়ে থাকি। এছাড়া আরও রয়েছে ALA( alpha linolenic acid), DHA, EPH এসিড, এন্টিঅক্সিডেন্ট, বিটা – ক্যারটিন, ভিটামিন -ই, কে, ফ্যাটি এসিড, লিপিড।

উপরোক্ত এসিড সমূহ প্রতিদিন একজন র্পূর্ণ বয়স্ক মানুষের ১১০০ মিলি গ্রাম প্রয়োজন হয়।

দৈনিক এক চা-চামচ তিসির তেল সেবন করার মাধ্যমে আপনি পাবেন

*১২০ ক্যালরি

*০.০১  গ্রাম প্রোটিন

*১৩.৬ গ্রাম ফ্যাট

*৭.৬ গ্রাম ওমেগা -৩ ফ্যাটি এসিড

*২.১ গ্রাম ওমেগা-৬ ফ্যাটি এসিড

স্বাস্থ্য উপকারিতায় তিসির তেল

স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী তিসির তেল। নিয়মিত এই তেল  সেবন করলে দেহের অনেক ক্ষতিকর জীবাণু বা মারাত্মক রোগের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। যথাঃ

১) ওজন কমানোর জন্য

বর্তমান সময়ে ডায়েট চার্টে তিসির তেল ডাক্তারগণ যুক্ত করতে বলেন। কারন আমাদের দেহের কোলন সিস্টেম উন্নত করে এবং পাকস্থলীর হজম কাজে সহয়তা করে। তাছাড়া শরীর থেকে বিষাক্ত টক্সিন বের করতে সাহায্য করে।

২০১৫ সালে নিউট্রিশন জার্নালের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, ডায়েট প্ল্যানে তিসির তেল যুক্ত করলে সহজেই ওজন কমানো সম্ভব হয়।                

২) কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে

বর্তমানে আমরা সবাই কম-বেশি এই সমস্যা ভুগে থাকি। বেশির ভাগ সময় বাইরের খাবার খেয়ে পেটে গ্যাসের সমস্যা হয় এবং পরে তা কোষ্ঠকাঠিন্য। তিসির তেল আপনার এই প্রতিদিনের সমস্যা থেকে মুক্ত করতে সাহায্য করবে।

৩) ডায়রিয়া সমস্যার সমাধান

অনেকেই আছেন ঘন ঘন  ডায়রিয়ার আক্রান্ত হয়ে পড়েন। নিয়মিত তিসির তেল সেবন করলে এই সমস্যা দূর করবে। কারন তিসির তেল আপনার মেটাবলিজম সিস্টেম উন্নত করতে সাহায্য করে।         

৪) ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই

বর্তমান সময়ে ক্যান্সার রোগীর সংখ্যা নেতিবাচক হারে বেড়ে চলেছে। তিসির তেল আপনাকে প্রাকৃতিক ভাবে ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করবে। বিশেষ করে ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে।  ALA (alpha linolenic acid) যা শরীরে থাকা ক্যান্সারের কোষ তৈরি হতে বাধা দেয়।

২০১৫ সালে দ্যা জার্নাল নিউট্রিশন এন্ড ক্যান্সার সাপোর্ট এর  এক রিপোর্টে উল্লেখ করা হয় যে, সস্তায় এবং কার্যকরি ভাবে ক্যান্সারের প্রতিরোধ তৈরি করা যায় নিয়মিত তিসির তেল খাওয়ার মাধ্যমে।

৫) হার্ট ভালো রাখে 

তিসির তেল হার্ট কে বিশষ ভাবে সুরক্ষা দেয়। কারন এতে থাকা Alpha  linolenic acid হার্টকে সুস্থ রাখে এবং হার্টজনিত সকল রোগকে দূরে রাখে।

এক গবেষণায় দেখা গেছে, যদি কোন ব্যক্তি প্রতিদিন ১.৫ গ্রাম তিসির তেল সেবন করলে। তার ৫০ শতাংশ হার্টের স্বাস্থ্য ঝুকি কমে যায়।

৬) সোগেনস হ্রাস করে

এই রোগটা সম্পর্কে আমরা হয়তো ভালো করে জানি না।সাধারণত এর লক্ষন হচ্ছে চোখের কোণা গুলো লাল হয়ে যায় এবং মুখের ভিতরটা শুকিয়ে যায়। পানি খেলেও তৃষ্ণা মেটেনা আর একটা সময় মুখের ভেতর দাতের মাড়ি গুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে। ফলে ওরাল সমস্যা দেখা যায়। অনেক সময় শরীরের টিস্যু গুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

বিশ্বের প্রায় সাত লক্ষ লোক এই রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকেন। আশার কথা হচ্ছে, নিয়মিত তিসির তেল সেবনে এই রোগ এর অনেকটা সমাধান করবে।

৭) কোলেস্টেরল কমায়

তিসির তেল আমাদের শরীরের কোলেস্টেরলের মাএা কমাতে সাহায্য করে। খারাপ কোলেস্টেরল LDL কে উল্লেখযোগ্য হারে কমায় তিসির তেলে থাকা ALA (alpha linolenic acid)।

এক গবেষণায় দেখা যায়, হাই- কোলেস্টেরল  একজন রোগী। যদি প্রতিদিন এক চা-চামচ তিসির তেল গ্রহন করেন তাহলে ১২ সপ্তাহের মধ্যে কোলেস্টেরল এর মাএা নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।          

৮) ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ  ও ঝুঁকি কমায়

প্রায় প্রতিটি ঘরে একজন করে ডায়াবেটিক রোগী পাওয়া যাবে। বলতে সাধারণ একটি রোগ পরিনত হয়েছে ডায়াবেটিস। নিয়মিত তিসির তেল সেবনে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

প্রি-ডায়বেটিস রোগীর সংখ্যা ও কিন্তু কম নয়। সেখানেও আপনাকে সাহায্য করবে তিসির তেল। দৈনিক  ১৩ গ্রাম তিসির তেল সেবন করলে মাএ সপ্তাহের মধ্যে এই মারাত্মক ঝুঁকি থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবেন।

তবে অতিরিক্ত মাএায় তিসির তেল সেবন স্বাস্থ্যের পক্ষে ভালো নয়। সেক্ষেত্রে   ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী নিয়মিত তিসির তেল সেবন স্বাস্থ্যের পক্ষে শ্রেয়।

দামঃ প্রতি লিটার ১,৬০০/- টাকা, ৫০০ মিলি ৮০০ টাকা, ১০০ গ্রাম ১৯০/- টাকা ।

অর্ডার কনফার্ম করার জন্য কল  করুন ::

☎ মোবাইল / হোয়াটস এপপ্স / ইমো # 01707001971
—————————————————————————————

👉ঢাকা সিটিতে পণ্য হাতে পেয়ে টাকা পরিশোধ করবেন।
👉ক্যাশ অন ডেলিভারী Cash on Delivery (COD).

🔴অর্ডার করার জন্য, আমাদের মোবাইলের ইনবক্সে মেসেজ সেন্ড করুনঃ

১.১  নাম #

১.২.ঠিকানা (বিস্তারিত)  #   বাড়ী নম্বর   #  কত তলা/ফ্লাট নম্বর  # , রোড নম্বর   # ,থানার নাম #

( লোকেশনের কাছাকাছি পরিচিত স্থান/বাজার/স্কুলের নাম)

২.১ আপনার মোবাইল নম্বর (সম্ভভ হলে )

২.২ ২য় কন্টাক্ট পারসনের নাম ও মোবাইল নম্বর

৩. প্রোডাক্ট এর নাম ,কোড অথবা ছবি ও পরিমান

[ মেসেজ পাঠানোর পর আমরা আপনার সাথে যোগাযোগ করে অর্ডার কনফার্ম করবো ]
=========================================

🟥ঢাকা সিটিতে ডেলিভারি চার্জ নুন্যতম ৮০ টাকা ( অতিরিক্ত ওজনে প্রতি কেজির জন্য ১৫ টাকা হারে  ডেলিভারি চার্জ বৃদ্ধি পাবে)।

🟥ঢাকা সিটির বাইরে কুরিয়ার থেকে ডেলিভারি চার্জ ১২০ টাকা ( অতিরিক্ত ওজনে ডেলিভারি চার্জ বৃদ্ধি পাবে )।

🟥ঢাকা সিটির বাইরে জেলা বা উপজেলায় হোম ডেলিভারি চার্জ ১৫০ টাকা ( অতিরিক্ত ওজনে প্রতি কেজির জন্য ৩০ টাকা হারে ডেলিভারি চার্জ বৃদ্ধি পাবে)।

🔴ঢাকা সিটির বাইরে থেকে অর্ডারটি নিশ্চিত করতে পণ্যের সম্পুর্ন মুল্য 🔴 এডভান্স প্রযোজ্য বিকাশ, নগদ ও রকেট অথবা ব্যাংকের মাধ্যমে। ( COD তে ক্যাশ কালেকশনে ১% চার্জ দিতে হবে । বিকাশ, নগদ ও রকেট চার্জ প্রযোজ্য)

🛑Bkash  : 0170 700 1971 ( Personal )

🛑Nagad : 0170 700 1971 ( Personal )

🛑Rocket : 0170 700 19718 ( Personal )

🛑DUTCH BANGLA BANK

👉AC NAME # MD ABDUR ROUF, SAVINGS AC # 2361 5168 939

🛑মোবাইলে অর্ডার দিতে কল করুন ::☎ মোবাইল / হোয়াটস এপপ্স / ইমো  #  01707001971

[ সকাল ১০টা থেকে রাত ১০ টার মধ্যে, ফোনে না পেলে এস এম এস দিয়ে রাখুন 0170 700 1971 নম্বরে ]

4 in stock

Description

শত বছর ধরে মানুষ তিসির বীজ বা ফ্ল্যাক্স সীড (Flax seed) খেয়ে আসছে এর স্বাস্থ্য উপকারিতার কারণে। চার্লস দি গ্রেট (শার্লামেইন) তাঁর অনুসারীদের নির্দেশ দিয়েছিলেন স্বাস্থ্যের জন্য তিসির বীজ খেতে।

আজকাল এই তিসির বীজ অসংখ্য স্বাস্থ্যোপকারিতার কারণে পশ্চিমা বিশ্বে সুপের ফুড (super food) হিসেবে পরিচিত পাচ্ছে।

তিসি চাষ করা হয় শুধুমাত্র এর বীজের জন্য। তিসির বীজ গুড়ো করে খাদ্যের সাথে মিশিয়ে খাওয়া হয় কিংবা এটা দিয়ে লিনসীড তেল বানানো হয়। তিসির গাছ খুব সুন্দর তাই এটা কখনো কখনো বাগানের শোভা বর্ধনের জন্য রোপণ করা হয়, আবার এর আঁশ দিয়ে লিনেন বানানো হয়।

তিসির বীজের পুষ্টিগুণ

এক টেবিল চামচ পরিমাণ তিসির বীজে আরো আছেঃ

  • ক্যালরিঃ ৫৫
  • পানিঃ ৭%
  • আমিষঃ ১.৯ গ্রাম
  • শর্করাঃ ৩ গ্রাম
  • চিনিঃ ০.২ গ্রাম
  • আঁশঃ ২.৮ গ্রাম
  • চর্বিঃ ৪.৩ গ্রাম
  • পলি আনস্যাচুরেটেড ফ্যাটঃ ২.০ গ্রাম
  • ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিডঃ ১.৫৯৭ গ্রাম
  • ভাইটামিন বি১: প্রতিদিনের প্রয়োজনের ৮%
  • ফোলেটঃ প্রতিদিনের প্রয়োজনের ২%
  • ক্যালসিয়ামঃ প্রতিদিনের প্রয়োজনের ২%
  • আয়রনঃ প্রতিদিনের প্রয়োজনের ২%
  • ম্যাগনেশিয়ামঃ প্রতিদিনের প্রয়োজনের ৭%
  • ফসফরাসঃ প্রতিদিনের প্রয়োজনের ৪%
  • পটাসিয়ামঃ প্রতিদিনের প্রয়োজনের ২%

তিসির বীজের৮টি উপকারিতা

১। তিসির বীজে আছে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা-৩

আপনি যদি মাছ খেতে অপছন্দ করেন তাহ’লে তিসির বীজ হতে পারে আপনার জন্য ওমেগা-৩ আহরণের সবচেয়ে উৎকৃষ্ট সূত্র। এতে আছে প্রচুর আলফা লিনোলিক এসিড alpha-linolenic acid (ALA) নামে এক ধরনের ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড।

ALA আপনার শরীরের জন্য খুবই দরকারি একটি ওমেগা-৩ এবং এটা আপনাকে খাদ্য থেকে নিতে হবে কারণ আপনার দেহ প্রাকৃতিকভাবে ALA উৎপাদন করে না।

পশুর উপর করা গবেষণায় দেখা গেছে তিসির বীজের ALA রক্তের ধমনীতে কোলেস্টেরল জমা হওয়া বন্ধ করে, ধমনীর প্রদাহ কমায় এবং টিউমার হওয়া বন্ধ করে।

কোস্টা রিকায় ৩,৬৩৮ জন মানুষের উপর এক গবেষণায় দেখা যায়, যারা বেশী পরিমাণে ALA খেয়েছেন তাদের হার্ট এটাক হওয়ার সম্ভাবণা অন্যান্যদের তুলনায় কম ছিল।

২৭টি গবেষণার একটি বড় রিভিউ, যা আড়াই লক্ষ (২,৫০,০০০) মানুষের উপর করা হয়, সেটাতে দেখা যায় ALA হৃদরোগ হওয়ার সম্ভাবণা ১৪% কমায়।

এছাড়া অসংখ্য গবেষণায় দেখা গেছে ALA স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়।

২। তিসির বীজে আছে প্রচুর লিগন্যান (Lignan) যা ক্যান্সার রোধ করে

লিগন্যান হচ্ছে এক ধরনের উদ্ভিজ উপাদান যাতে আছে এন্টিঅক্সিডেন্ট ও এস্ট্রোজেন – এই দু’টি উপাদানই ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবণা দূর করতে পারে।

তিসির বীজে আছে অন্যান্য উদ্ভিজ খাদ্যের তুলনায় ৮০০% বেশী লিগন্যান।

কিছু গবেষণায় দেখা গেছে যেসব নারী (বিশেষ করে পঞ্চাশোর্ধ নারী) তিসির বীজ খান তাঁদের স্তন ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি অন্যান্যদের তুলনায় কম।

কানাডায় ৬,০০০ জন নারীর উপর করা এক গবেষণায় দেখা গেছে যারা তিসির বীজ খান তাঁদের স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি ১৮% কম।

পুরুষদের জন্যেও তিসির বীজ খুব উপকারী। একটি ছোট গবেষনায় দেখা গেছে যেসব পুরুষ তিশির বীজ খান তাঁদের প্রস্টেট ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি কম থাকে। এছাড়া তিসির বীজ পায়ু ও ত্বকের ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।

৩। তিসির বীজে আছে অনেক স্বাস্থ্যোপকারী আঁশ

শুধু এক টেবিল চামচ তিসির বীজে আছে ৩ গ্রাম আঁশ, যা পুরুষ ও নারীর প্রতিদিনের প্রয়োজনের ৮% ও ১২%।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে তিসির বীজ একটি উপকারী খাদ্য।

৪। তিসির বীজ কোলেস্টেরল কমায়

একটি গবেষণায় দেখা গেছে উচ্চ মাত্রার কোলেস্টেরল সম্পন্ন যেসব মানুষ প্রতিদিন ৩ টেবিল চামচ (৩০ গ্রাম) তিসির বীজ খেয়েছেন তাঁদের সর্বমোট কোলেস্টেরল (total cholesterol) ১৭% কমেছে এবং খারাপ কোলেস্টেরল (LDL cholesterol) ২০% কমেছে।

ডায়াবেটিস রোগীদের উপর করা অন্য একটি গবেষণায় দেখা গেছে যারা প্রতিদিন ১ টেবিল চামচ (১০ গ্রাম) তিসির বীজ এক মাস ধরে খেয়েছেন তাঁদের ভাল কোলেস্টেরলের (HDL cholesterol) মাত্রা ১২% বৃদ্ধি পেয়েছে।

৫। তিসির বীজ উচ্চ রক্তচাপ কমায়

কানাডার একটি গবেষণায় দেখা গেছে প্রতিদিন ৩০ গ্রাম তিসির বীজ ৬ মাস ধরে খাওয়ার ফলে সিস্টোলিক (উপরের) ব্লাড প্রেশার ১০ mmHg এবং ডায়াস্টোলিক (নীচের) ব্লাড প্রেশার ৭ mmHg কমেছে।

যারা ইতিমধ্যে ব্লাড প্রেশারের ঔষধ সেবন করছিলেন, তিসির বীজ তাদের ব্লাড প্রেশার আরো কমিয়েছে।

৬। তিসির বীজে আছে উচ্চ মানের আমিষ

তিসির বীজ হচ্ছে উদ্ভিজ আমিষের একটি ভাল সূত্র। তিসির বীজের আমিষ খুব উঁচু মানের, এতে আছে প্রচুর আরজিনিন নামক এমিনো এসিড, এস্পার্টিক এসিচ এবং গ্লুটামিক এসিড।

অসংখ্য গবেষণায় দেখা গেছে তিসির বীজের আমিষ ইমিউন সিস্টেমের কার্যকারিতার উন্নয়ন, কোলেস্টেরল কমাতে এবং টিউমার হওয়ার ঝুঁকি কমায়।

৭। তিসির বীজ ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে

কিছু গবেষণায় দেখা গেছে টাইপ ২ ডায়াবেটিসের রোগী যারা ১০-২০ গ্রাম তিসির বীজ প্রতদিন খাদ্যের সাথে খেয়েছেন এক মাস পর্যন্ত, তাঁদের ব্লাড সুগার ৮-২০% কমেছে।

গবেষকদের মতে টাইপ ২ ডায়াবেটিস রোগীদের খাদ্য তালিকায় তিসির বীজ অন্তর্ভুক্ত করলে তা তাদের রোগের উন্নতি করবে।

৮। তিসির বীজ ক্ষুধা কমায় ও ওজন নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করা

আপনার যদি খাদ্য খাওয়ার পরেও স্ন্যাক্স খাওয়ার অভ্যাস থাকে তাহ’লে আপনি পানীয়ের সাথে গুঁড়ো তিসির বীজ মিশিয়ে পান করতে পারেন।

একটি গবেষণায় দেখা গেছে ২.৫ গ্রাম তিসির পাউডার পানীয়ের সাথে মিশিয়ে খেলে পেট ভরা থাকে ও  ক্ষুধা দূর হয়

 

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “তিসির তেল I Flaxseed Oil I 100 ml”

Your email address will not be published. Required fields are marked *